যদি স্যাটেলাইট সমুহ পৃথিবীতে ঝরে পড়ে

  • 0
যদি স্যাটেলাইট সমুহ পৃথিবীতে ঝরে পড়ে

1 Answer

  1. যদি স্যাটেলাইট সমূহ পৃথিবীতে ঝরে পড়ে

    স্যাটেলাইট আমাদের ইন্টারনেট এবং টেলিভিশনের যোগাযোগ সরবরাহ করে থাকে। হাজার হাজার উপগ্রহ এবং তার ধ্বংসাবশেষ টুকরোগুলো বর্তমান আমাদের পৃথিবীর চারপাশে প্রদক্ষিণ করেছে। কি হবে সব উপগ্রহগুলো অফলাইন হয়ে গেলে এবং তারা পৃথিবীতে চলে আসে এবং তার ধ্বংসাবশেষ ছিন্ন ছিন্ন হয়ে পৃথিবীতে ছড়িয়ে যায়।

    পৃথিবীতে বিধ্বস্ত উপগ্রহগুলো কী করবে? কয়টি উপগ্রহ নেমে আসবে? এবং এটি কত দিন ধরে স্থায়ী হতে পারে?

    বর্তমানে কক্ষপথে ৫০০০ টিরও বেশি উপগ্রহ রয়েছে। এই সংখ্যাটি কমপক্ষে ২০২৫ সালের মধ্যে দ্বিগুণ হওয়ার আশা করা হচ্ছে। স্পেসএক্স তার স্টারলিঙ্ক প্রোগ্রামের মাধ্যমে ২০২৬ সালের প্রায় ১২ হাজার স্যাটেলাইট প্রতিস্থাপন করার প্ল্যান করেছে। সুতরাং এই শতকের শেষের দিকে মহাকাশে প্রায় ২০০০০ উপগ্রহ থাকবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। সুতরাং এতসব উপগ্রহ যদি পৃথিবীতে এসে পড়ে।

    প্রথমত আমাদের বুঝতে হবে সেটেলাইট এবং তার ধ্বংসাবশেষ পৃথিবীতে বসে পড়া নতুন কিছু নয়। প্রতি বছর ১০০ টিরও বেশি ধ্বংসাবশেষ পৃথিবীর দিকে চলে আসে। আপনি নোটিস করতে পারেন নাই কারণ এটি মাটিতে আকাশ আসার আগেই জলে পুরে ছাই হয়ে যায় । তবে ২০,০০০ উপগ্রহ পৃথিবীর দিকে চলে আসে তবে আপনি অবশ্যই তা লক্ষ্য করবেন।

    আপনি কোনও ফুটবল মাঠের আকারের স্পেসশিপগুলি পৃথিবীতে নামা দেখার জন্য অস্তির হবেন না। বরং, আপনি অবিলম্বে লক্ষ্য করবেন যে আপনি কারও সাথে যোগাযোগ করতে পারেন নি। ফোন লাইন ডাউন হবে। আপনি টিভি দেখতে সক্ষম হবেন না, যেহেতু ইন্টারনেট পাশাপাশি কাজ বন্ধ করে দেবে।

    কিন্তু আমাদের উপগ্রহের পৃথিবীতে পড়ার সবচেয়ে মারাত্মক প্রভাবগুলির মধ্যে একটি হ’ল জিপিএস সিস্টেম বন্ধ হয়ে যাওয়া। আকাশে বিমানগুলি কোন বায়ু ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ ছাড়াই চলাচল করতে সক্ষম হবে না। একসময় আকাশে ১২০০০ টি পর্যন্ত প্লেন চলছিল , এটি তাদের একে অপরের সাথে ক্রাশে হওয়ার সম্ভাবনা তৈরি করবে।

    বিশ্বব্যাপী অর্থনীতিগুলি বন্ধ হয়ে যায়, এবং মানুষকে বিশ্বের অন্যান্য অংশ থেকে বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হবে। ক্রেডিট কার্ড এবং অন্য কোনও বৈদ্যুতিন অর্থপ্রদান অকেজো হবে। এবং এটিএম বা ব্যাংক থেকে নগদ টাকা তুলার আশা করবেন না, কারণ এটি কোনভাবেই কাজ করবে না ।

    এটি ১৮০০ এর দশকে সময় মতো হবে। তত্ত্ব অনুসারে, আমরা অবশেষে স্যাটেলাইট ব্যবহার না করে সমস্ত জিনিস প্রতিস্থাপন করতে সক্ষম হব।

    তবে মনে করুন সেই সমস্ত স্যাটেলাইট এখনও পৃথিবীর দিকে চযে আসলে কি হবে?

    যদি উপগ্রহগুলি পৃথিবীতে পড়ে তবে তা তাত্ক্ষণিকভাবে ঘটবে না। এটি কারণ স্যাটেলাইটের গতি এবং মহাকাশে অবস্থানগুলি তাদের ক্রাশ হতে আরও বেশি সময় নিতে পারে। উপগ্রহ পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলের উপরে ১০০০ কিলোমিটার (৬২১মাইল) উপরে থাকে এবিং এটি মাটিতে পড়ার আগে ১০০ বছর সময় নিতে পারে।

    সুতরাং পৃথিবীতে পতিত এই সমস্ত উপগ্রহগুলি একটি দীর্ঘ, টানা লম্বা প্রক্রিয়া হবে। তাদের অনেকগুলি আমাদের বায়ুমণ্ডলে জ্বলে উঠবে। তবে এর অর্থ এই নয় যে আমরা সম্পূর্ণ নিরাপদ থাকব।

    তবে যদি ২০,০০০ উপগ্রহ পৃথিবীতে পড়ে তবে তারা যেখানে খুশি সেখানে যেতে পারে। তাদের অনেকগুলি মহাসাগরে ডুববে, যেহেতু তারা আমাদের পৃথিবীর ৭১ ভাগ গ্রহণ করে। তবে এই স্যাটেলাইটগুলির প্রচুর পরিমাণ স্থলভাগে শেষ হবে।

    এই উপগ্রহগুলি পুরো ভবন এবং শহরগুলিকে ধ্বংস করতে পারে, যেহেতু তারা ২৮,০০০ কিমি / ঘন্টা (১৪০০ মাইল প্রতি ঘন্টা) গতিবেগে ভ্রমণ করবে, এমনকি যদি উপগ্রহের ছোট ছোট অংশগুলি মাটিতে আঘাত করতে সক্ষম হয় তবে তাদের শকওয়েভগুলি যথেষ্ট ক্ষতি করতে পারে। পৃথিবীতে আঘাতকারী এই সমস্ত উপগ্রহের গতিশক্তি পরমাণু বোমা ফেলে দেওয়ার মতো হবে।

    যদি স্যাটেলাইট সমুহ পৃথিবীতে ঝরে পড়ে

     

     

     

     

    • 0

Leave an answer

You must login to add an answer.