KiHobe Latest Articles

Fatin Hasnat Rahman Setu
  • 0

সেশনজট, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পুনরায় চালু এবং আমি:

  • 0
সেশনজট, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পুনরায় চালু এবং আমি:

Leave an answer

You must login to add an answer.

1 Answer

  1. শুরুতেই সেশনজট নিয়ে কিছু কথা বলা জরুরী। আমি একজন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাধারণ শিক্ষার্থী। যদ্দুর আমি জানি আমি ২০১৮-১৯ সেশনে বিশ্ববিদ্যালয়ে এসেছি এবং ২০২২-২৩ সেশনে আমার স্নাতক শেষ হবার কথা। কিন্তু সেটা যদি উক্ত সময়ে না হয় তবে ধরে নিতে পারি আমি সেশনজটে পড়েছি। যা নির্দ্বিধায় একটি অপ্রত্যাশিত এবং দু:খজনক ঘটনা হবে আমার জন্য।

    এবার আসি করোনার মধ্যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান পুনরায় খোলা হলে কি কি হতে পারে সে বিষয়ে। ফ্রান্সে স্কুল পুনরায় চালুর একদিনের মাথায় ৭০ জন প্রাইমারি স্কুলের শিক্ষার্থী করোনায় আক্রান্ত। আমি ফ্রান্সের কথা বলছি যারা আমাদের থেকে অনেক কম ঘনবসতিপূর্ণ এবং যথেষ্ট উন্নত রাষ্ট্র। আর আমরা? আমরা করোনাভাইরাসের আকার ছোট হওয়ায় তাকে ভয় পাওয়া যাবেনা মানা জাতি। এখন বলবেন এই কথা তো শুধু এক-দুইজন বলেছে তাই বলে পুরো জাতিকে এমন বলা কি যুক্তিযুক্ত কিনা! আমি বলবো ‘হ্যা অবশ্যই আমি যুক্তিতে আছি।’ ঈদের দুইদিন আগে মানুষের বাড়ি ফেরার ঢল এবং রাস্তাঘাটে মানুষের ভিড় দেখেই আমরা বুঝি যে করোনাকে এদেশের মানুষ তেমন পাত্তা দেয় না।

    প্রতিদিন ৩০/৪০ জন মারা যাচ্ছে দেশে করোনায় আক্রান্ত হয়ে। আমি এই সংখ্যায় বিশ্বাস করিনা। এই অবিশ্বাস করার কারণ হচ্ছে আমাদের দেশের মানুষের অসচেতনতা, যে নিজে থেকে যাবে টেস্ট করতে। এখানে প্রশাসনেরও গাফলতি কম নয়।

    এই মুহুর্তে যদি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দেওয়া হয়, প্রতিষ্ঠানগুলো ক্লাস/পরীক্ষা সব শুরু করে দিবে ফলে ছাত্রদেরকে জোর করে হলেও ক্লাসে আসতে হবে, হলে উঠতে হবে, গণরুমে এসে মশার কামড় খেয়ে ডেঙ্গু বাঁধাতে হবে এবং সব শেষে করোনার কথা আপনাদের উপরই ছেড়ে দিলাম। মরণ-মৃত্যু আল্লাহর হাতে, তবে প্রত্যেক মানুষের অধিকার আছে নিজেকে যতক্ষণ পারা যায় বাঁচানোর, শেষ পর্যন্ত লড়ে যাওয়ার।

    গণপরিবহনও কিছু পরিমাণে শুনলাম ছাড়া হবে। হতেই পারে। তো কিভাবে স্বাস্থ্যবিধির সেই নির্দেশনা গনপরিবহন শ্রমিক এবং যাত্রীদের কিভাবে মানাবেন তা ভেবেছেন?

    এতোকিছু বলার পেছনে কারণ হচ্ছে আমি ঘরে বসে থাকতে রাজি আছি। সেশনজটেও পড়তে রাজি আছি। এতো সহজে মরতেও রাজি, কিন্তু আমার কাছের মানুষদের মারতে আমি রাজি নই। আর সেশনজটের কথা বলি, সেশনজট শুধু আমার-আপনার হচ্ছেনা। পুরো পৃথিবীই তো সেশনজটে আছে। ধরে নেই বছরটা আমাদের ক্যালেন্ডার থেকে বাতিল হয়ে গিয়েছে। এটা তো শুধু কোয়ারেন্টাইন/লকডাউন/প্যান্ডেমিক এসব কঠিন কঠিন শব্দ দিয়ে বুঝালে বুঝবেন না। আমরা ৩য় বিশ্বযুদ্ধে আছি। মানবসভ্যতা বনাম প্রকৃতির সেই পুরাতন যুদ্ধে।

    -ফাতিন হাসনাত রহমান
    ২য় বর্ষ,
    জাপানিজ স্টাডিজ বিভাগ,
    ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।